গোলাম কিবরিয়া পিনু’র কবিতা

Filed under: কবিতা |

 

 kobi-1

প্র ণ য়  বি শ্বা স

 

প্রে ম কি শুধুই সৌন্দর্যের পিছু নেয়?

নাকি বাতাস ও ঝড়ো মেঘমালা নিয়ে

এর অগ্রযাত্রা!

 

শুধু পুষ্পরাজি দিয়ে øিগ্ধ পরিবেশ তৈরি হয়?

নাকি ইন্দ্রিয়প্রীতির ইচ্ছে নিয়ে,

উচ্ছলিত হয়ে ওঠে কাছের সমুদ্র?

 

প্রেমের ভেতরে যদি থাকে ছলনা, তবেতো,

পায়রার খোপে রাজহাঁস মরে যায়!

 

অনুরাগ তৈরি করে রাগ

সেটা বেশ ভালো

এতে প্রণয়বন্ধন রন্ধন ছাড়াই আরো দৃঢ় হয়।

kobi-2

মোহমুগ্ধ হতে হতে অন্ধ হয়ে যাও

তাও ভালো, তবে

প্রণয়বিশ্বাস হারালে তা ভয়ংকর হয়ে ওঠে।

 

kobi-4

 

 

 

 

সূ  র্য   মু  খী

 

 অস্থির ভাবে হাঁটছিÑদৌড়াচ্ছি

কখন কোন্ দিকে কোথায় চলে যাচ্ছি

ঠিক-ঠিকানা নেই

কখনো কখনো হারিয়ে ফেলছি খেই!

 

গাছের তলে দাঁড়িয়ে ঠাণ্ডা হবো

তার জো’ নেই

মাথাব্যথা বাড়ছে,

নিজের প্রকৃতি নিজের ভেতর মরে যাচ্ছে!

 

ভালো থাকার জন্যে সজীবতা নাই!

আজকের দিনটাও মাটি

বিছানো রয়েছে যে পাটি

বহ্নিশিখায় কালকে পুড়ে হবে তা ছাই?

 

নিজের জামা নিজেই ছিঁড়ি

কোন্ আচ্ছাদনে নিজেকে ঢাকি?

দুধ থেকে ছানা বের হয়

সেটাকে না জেনে কোন্খানে

নিজেকে খুলে রাখি!

 

দিকবিদিক জ্ঞান না হারিয়ে

হই আবারো নিজমুখী

নিজের প্রতি নিজেই দেই হাত বাড়িয়ে

ফুটে আছে দেখো আমার দিকেই সূর্যমুখী।

kobi-3

 kobi-4

 

 

 

 

পু  ড়ে  ছি    ব  হু  দি  ন

 

মনিতে পুড়েছি বহুদিনÑঋণ নিয়ে

তারপর ইট!

এরপর বহুদিন আরো রোদে পোড়া

আমি নই সোনা-রূপা ও রাংতায় মোড়া!

 

কাদা ও বালির মিশ্রণকারী দ্বিপদী

ও কলহপ্রিয় লোক একসাথে আজ

আমাকে পরায় কোন্ সাজ?

নেই লজ্জা-শরম ও লাজ!

 

পুড়তে পুড়তে যদিও হয়েছি ইট

তবু সহ্য হয়না কোনো গিঁটÑ

বার বার ফাঁস নিয়ে কেন আমি মরি!

প্রাণ আছেÑনিজ ঝাঁকুনিতে যেন নড়ি।

 

kobi-4

 

 

 

 

শা  ল  গ্রা   ম

 

বৃ ষ্টিপাতের সময়েও আমরা ঘরে বসে থাকলাম

ইতর-স্বভাবের কারণে,

পাথুরে মাটিও সিক্ত হলো

আমরা হলাম না!

 

বৃষ্টিতে ভিজতে পারলে ময়লা ও কালিমা

অনেকটা ধুয়ে মুছে যেত,

শালগ্রামে অবিবেকী কাণ্ডকারখানা

আমাদেরও জানা!

 

নিজেদের গায়ে এত কলুষতা ও দুর্গন্ধ

শ্বেতজবা ফুটতে পারেনা ঘরের উঠানে

খরা চলে আসছে জেনেও,

অঝোরধারায় বৃষ্টিমুখর হলাম না!

 

আড়ংধোলাই কবে? কোন্ বৃষ্টিতে হবে?

 

kobi-4

 

 

 

 

ন  ব্য  তা  র    চূ  ড়ো

 

 নি জের প্রবর্তনায় যুদ্ধে যাই

আদ্যবর্ণ স্বর্ণ হয়ে ওঠে কখন? তা আমি জানি।

 

সীমান্তঘেষা জমি পার হয়ে কোন্ নেশা নিয়ে

কোন্ দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ?

যেখানে সমুদ্র তার ঊর্মি নিয়ে থাকে!

 

নকশার ভেতরে যে ক্ষমতা লুকিয়ে,

তা থেকে উদ্দীপনার সৃষ্টি হতে হতে

নিজের প্রবাহ নিয়ে অন্তর্প্রবাহে ডুবতে থাকি।

 

প্রতিকূলতা উজিয়ে যাই

অভিপ্লবে নব্যতার চূড়ো স্পর্শ করি,

লিপিবদ্ধ হয় কোন্ পুস্তকে এ যুদ্ধ জয়?

 

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।