|

চাই সহযোগিতা, চাই পরামর্শ

niru11

 

বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে সময়ের কথা’র ইনবক্সে প্রতিদিনই পাঠকরা পত্রিকাটি সম্পর্কে তাদের অনুভব-অনুভূতির কথা লিখে জানাচ্ছেন আমাদের।

প্রায় প্রতিটি পাঠকের পজেটিভ কমেন্ট আমাদের উৎসাহ-উদ্দীপনায় যোগ করছে নতুন মাত্রা। তাদের সেসব মতামত আমাদের আরো বেশী সাহসী করে তুলছে।

দক্ষিণ কোরিয়া থেকে আব্দেল ওয়াদুদ লিখেছেন, ‘পত্র-পত্রিকা পড়া আমার আজন্ম নেশা। দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাস খাটছি। এই দীর্ঘ প্রবাস জীবনে নানা নামের, নানা ধাঁচের, নানা পত্রিকা দেখেছি এবং দেখছি, পড়েছি এবং পড়ছি।

কিন্তু এ যাবৎ কোনো পত্রিকাই আমার মন ভরাতে পারেনি। এ ক্ষেত্রে সময়ের কথা একশ’তে একশ’ভাগ সফল। আমার মতো পত্রিকা বুভুক্ষ পাঠকদের চাহিদা পূরণে সক্ষম, এমন একটি পত্রিকা প্রবাস থেকে বেরুবে এটা ছিলো কল্পনার বাইরে।

কেননা প্রবাস থেকে যেসব পত্রিকা প্রকাশ করা করা হয়, তা যেনো পত্রিকাওয়ালারা শুধুমাত্র নিজেদের জন্যই প্রকাশ করে থাকেন। পাঠকদের জন্য নয়।

এসবের প্রায় সবগুলোই বলতে গেলে ঢাকার পত্রিকাগুলোর ফটোকপি। আবার অধিকাংশেরই মান যেমন নিম্ন, তেমনি দুর্বল। ভুল বানানের ছড়াছড়ি। কোনোটা আবার এতোটাই অশ্লীল যে, চোখ রাখা দায়। দায়সাড়া গোছের উপস্থাপন। বলার অপেক্ষা রাখে না, সেসব পত্রিকায় পাঠকের চাহিদা এবং রুচি বরাবরই উপেক্ষিত থাকে।

কিন্তু অনেকটা ধুমকেতুর মতো আবির্ভূত ‘সময়ের কথা’ পাল্টে দিলো প্রবাসের সাংবাদিকতার সমস্ত ধ্যান-ধারণা। রাতারাতি জয় করে নিলো পাঠকদের ভালোবাসা। সময়ের কথা’র মতো একটি মার্জিত, সুপঠিত, দৃষ্টিনন্দন পত্রিকা প্রবাসী পাঠকদের ছিলো দীর্ঘদিনের চাওয়া। পত্রিকাটি পেয়ে আমরা সত্যিই আনন্দিত।’

সময়ের কথায় সরাসরি লেখক, সাংবাদিকরা লিখছেন; ফলে আমরা তরতাজা সব লেখা ও সংবাদ পাচ্ছি। যা ঢাকার পত্র-পত্রিকাগুলোর অনলাইন সংস্করণে পড়ছি অবিকল সেটাই আবার সময়ের কথায় পড়তে হচ্ছে না।অন্যরা যা করছে সময়ের কথা তা করছে না। আমার দৃষ্টিতে এই প্রবাসে সময়ের কথার এটা একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন । এ ধারাবাহিকতা যদি তারা ধরে রাখতে পারে তবে অবশ্যই প্রবাসী পাঠকদের ভালোবাসা সব সময়ই তাদের সাথে থাকবে।

পরিশেষে ওয়াদুদ সাহেব সময়ের কথা পরিবারকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

প্রবাসী পাঠকদের উপরোক্ত সুখানুভূতি ছড়ানো অনেক মেইল আমরা পাচ্ছি। অপরদিকে,  যেহারে প্রতিদিন সময়ের কথা’র পাঠকের সংখ্যা বাড়ছে, তাতে আমাদের নির্ধারিত লক্ষ্য সম্পর্কেও আমরা দিনে দিনে আরো বেশী আশাবাদী হয়ে উঠছি। প্রবাসের পাঠকরা যেমন চায় একটি ভালো মানের পত্রিকা; তেমনি আমরা চাই এই প্রবাসেও সঠিক সাংবাদিকতার নিয়ম-নীতির ভেতোর দিয়ে, সুন্দর, পরিচ্ছন্ন, নির্ভূল, মনকাড়া পত্র-পত্রিকা প্রকাশিত হোক। পত্রিকা শুধু প্রকাশের জন্যই প্রকাশ নয়, কিংবা পত্রিকাওয়ালাদের নিজেদের স্বার্থেও প্রকাশ নয়; পত্র-পত্রিকাগুলো প্রকাশিত হোক পাঠকের স্বার্থে। পাঠকের চাহিদা পূরণই হোক তাদের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।

জানি না, প্রবাস জীবনের কঠোর বাস্তবতা আর সীমাহীন প্রতিকূলতা মোকাবেলা করে আমরা সময়ের কথা পরিবার কতোটুকু এগুতে পারবো। তবে আমাদের চেষ্টা থাকবে, আমরা দৃঢ়প্রতীজ্ঞ, একচুলও নির্ধারিত লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত না হবার। আর এ জন্য সুপ্রিয় পাঠক ও শুভান্যুধ্যায়ীদের সহযোগিতা চাই; চাই পরামর্শ।

সকলেই ভালো এবং সুন্দর থাকুন।

 

-মাহাবুবুল হাসান নীরু

ক্যালগেরি, কানাডা।

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা