দ্রুততম মানবী শেলি-এ্যান ফ্রেজার-প্রাইস

Filed under: ফিচার,সময়ের খেলা |

Shelly-Ann-Fraser-Pryce-

দ্রুততম মানবী

শেলি-এ্যান

ফ্রেজার-প্রাইস

 

জাহিদুল আলম জয়

 

মে য়েদের ১০০ মিটার দৌড়ের ফাইনালে স্বদেশী উসাইন বোল্টের পদাঙ্ক অনুসরণ করে  বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের খেতাব পুনরুদ্ধার করেন জ্যামাইকার তারকা স্প্রিন্টার শেলি-এ্যান ফ্রেজার-প্রাইস। কাঙ্খিত স্বর্নপদক করায়ত্ত করতে অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন শেলি সময় নেন ১০.৭১ সেকেন্ড। এই টাইমিং মৌসুমের সেরা। রৌপ্যপদক পাওয়া আইভরি কোস্টের মুরিয়েল আহুরের টাইমিং ১০.৯৩ সেকেন্ড। তার চেয়ে মাত্র ০.০১ সেকেন্ড বেশি সময় নিয়ে ব্রোঞ্জপদক লাভ করেন গতবারের চ্যাম্পিয়ন যুক্তরাষ্ট্রের কার্মেলিটা জেটার। মেয়েদের ২০০ মিটার স্প্রিন্টেও স্বর্ণপদক জয় করেন শেলি। ২৬ বছর বয়সী শেলি ২০০ মিটারের স্বর্ণপদকটি নিজের করে নিতে সময় নেন ২২.১৭ সেকেন্ড। টাইমিংয়ের দিক দিকে অবশ্য কোন রেকর্ড গড়তে পারেননি। কিন্তু ঠিকই রচনা করেছেন কৃতিত্বপূর্ণ গৌরবগাথা। ইতিহাসের তৃতীয় মহিলা স্প্রিন্টার হিসেবে বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে ১০০ ও ২০০ মিটার ইভেন্টে স্বর্ণপদক লাভ করেন তিনি। এর আগে ১৯৮৭ সালে পূর্ব জার্মানির সিলকে গ্লাডিশ করেছিলেন প্রথমবার। এরপর ১৯৯১ সালে তারই স্বদেশী ক্যাট্রিন কাব্রে পুনরাবৃত্তি করেন সেই কীর্তির। রৌপ্যপদক লাভ করেন আইভরি কোস্টের ‘মহিলা দ্রগবা’ খ্যাত মুরিয়েল আহোর। ব্রোঞ্জপদক পান নাইজেরিয়ার ব্লেসিং ওকাগবারে। মুরিয়েল ও ব্লেসিং একই সময়ে (২২.৩২ সেকেন্ড) নিয়ে দৌড় শেষ করলেও ফটোফিনিশে এগিয়ে থাকায় রূপার ‘ডাবল’ জিতেছেন আহোর।

এই ইভেন্টে যুক্তরাষ্ট্রের এ্যালিসন ফেলিক্সও স্বর্ণদক প্রত্যাশী ছিলেন। পিছিয়ে ছিলেন না শেলিও। দৌড় শেষে দুজনেই শুয়ে পড়েন ট্র্যাকে। কিন্তু একজন যখন প্রাপ্তির আনন্দের জোয়ারে ভাসছেন, আরেকজন তখন হতাশায় নীল! ফেলিক্স কোন পদক জেতা দূরে থাক, দৌড়ই শেষ করতে পারেননি! পারবেন কিভাবে? দৌড় শুরুর একটু পরেই হঠাৎ করে খোঁড়াতে শুরু করেন ফেলিক্স। ব্যথায় কাতর হয়ে লুটিয়ে পড়েন ট্র্যাকে। শেলি তখন ছুটে চলেছেন এক্সপ্রেস গতিতে।  আসল প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় সুযোগটা মোটেও হাতছাড়া করেননি শেলি। সবার আগে থেকেই দৌড় শেষ করে পূর্ণ করেন দারুণ এক ‘ডাবল’!Shelly+Ann+Fraser+Pryces-২

‘এ ইভেন্টে জেতার জন্য আমাকে কঠোর পরিশ্রম করতে হয়েছে। জানতাম, আত্মবিশ্বাস, শক্তি আর ভাগ্য সুপ্রসন্ন হলে আমিই জিতবো। এবং সেটাই হয়েছে। দেশকে কিছু দিতে পেরে খুব আনন্দ হচ্ছে আমার। এটা আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা মুহূর্ত।’ স্বর্ণজয়ের পর এভাবেই নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করেন ‘স্প্রিন্ট কুইন’ শেলি। বেইজিং ও লন্ডন টানা দুটি অলিম্পিকেই দ্রুততম মানবী ছিলেন শেলি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপেও শিরোপা জেতার দায়বদ্ধতা তাই ছিলই। শেলি নিজের কাজটা সারেন একটু চাপে থেকেই। পুরো ফিট ছিলেন না। পায়ে ব্যথা নিয়ে ১০০ মিটার দৌড়ে শিরোপা জেতা যে বিশেষ কিছু, সেটাই দৌড় শেষে বারবার বলেছিলেন তিনি। মেয়েদের  ৪-১০০ মিটার রিলে ইভেন্টেও জ্যামাইকা জয় করে সোনার পদক। এর ফলে ১০০ ও ২০০ মিটারে স্বর্ণজয়ী জ্যামাইকার শেলি এ্যান ফ্রেজার প্রাইস দ্বিতীয় মহিলা অ্যাথলেট হিসেবে এক বিশ্ব আসরে তিনটি স্বর্ণজয়ের কৃতিত্ব দেখিয়েছেন। এর আগে একই কৃতিত্ব দেখিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ফেলিক্স। অসাধারণ সাফল্যগাথার পর শেলি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমি বাঁ পায়ে একটু ব্যথা অনুভব করছিলাম। কিন্তু ট্র্যাকে এসে ঠিকমতোই দৌড়েছি। অন্য কারো দিকে মনোযোগ দেইনি।’

জ্যামাইকার কিংস্টনে ১৯৮৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন শেলি। শৈশব থেকেই এ্যাথলেটিক্সে আগ্রহী ছিলেন। ভাল দৌড়াতেন বলে কোচের পরামর্শে বেছে নেন রানারের ক্যারিয়ার। তারপর যত সময় গড়াতে থাকে, ততই সাফল্য পেতে থাকেন। ১১ বছরের ক্যারিয়ারে এ পর্যন্ত লাভ করেছেন ১৫ পদক। এর মধ্যে ৯টি-ই স্বর্ণপদক। বাকি ৫টি রৌপ্য এবং ১টি ব্রোঞ্জপদক। ২০১০ সালে নিষিদ্ধ ড্রাগ সেবনের অপরাধে অভিযুক্ত হয়ে বিশ্ব এ্যাথলেটিক্স সংস্থা কর্তৃক ছয় মাসের জন্য বহিস্কৃত হন। ক্যারিয়ারে এই একটা ঘটনাই তার জন্য কালিমা স্বরূপ। ২০১১ সালের জানুয়ারিতে তিনি বিয়ে করেন দীর্ঘদিনের প্রেমিক জেসন প্রাইসকে। বিয়ের পর নিজের নামের শেষে স্বামীর ‘প্রাইস’ পদবিটা সংযুক্ত করে নেন। ২৬ বছর বয়সী শেলির লক্ষ্য আগামী ২০১৬ রিও অলিম্পিকে ১০০ মিটার দৌড় ইভেন্টে স্বর্ণপদক জিতে হ্যাটট্রিক করা এবং ইতিহাস সৃষ্টি করা। সেটা তিনি করতে সক্ষম হবেন কি না, সেটা বলে দেবে সময়ই।

২০০৮ বেজিং ও ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে ১০০ মিটার দৌড়ে সোনাজয়ী ফ্রেজার-প্রাইস ২০০৯ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপেও প্রথম হয়েছিলেন। তবে ২০০ মিটার দৌড়ে এটা তার প্রথম সোনা।

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।