অনিদ্রা রোধে এক্সারসাইজ

Filed under: সময়ের লাইফস্টাইল |

exersice3 

শহারিয়ার কবীর তুষার : সারাদিন কায়িক পরিশ্রম বা করমজজ্ঞের পর শরীরে ক্লান্তি আসাটাই স্বাভাবিক। আর এ ক্লান্তির আবেশের প্রতিফিলন ঘটে ঘুমের মধ্য দিয়ে ।কিন্তু সারাদিনে ক্লান্তির পরও যদি আমাদের চোখে নিদ্রা না আসে সারারাত কেটে যায় বিছানার এ পাশ ওপাশ করে তবে তা পরবর্তীতে  কর্মক্ষেত্রে শরীর ও মন দুই ক্ষেত্রেই চাপ অনুভিত হয়। কাজের ক্ষেত্রে যেমন আমরা মনোযোগ দিতে পারিনা তেমনি মন মেজাজটাও হয়ে যায় খিটখিটে ।তাই আমাদের এ নিদ্রাহীন অস্বস্তিকর অবস্থা দুরী করনে এক্সারসাইজ  বা ব্যায়াম  করা জরুরী। সমীক্ষায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত এক্সারসাইজ করেন তাদের ঘুম অনেক ভাল হয়। এক্সারসাইজ করার ফলে শরীরের  মাসল গুলো  রিলাক্স হয় যা গভীর ঘুমে সাহায্য করে। তাই আমাদের প্রতিদিন না হলেও সপ্তাহে  ৩/৪ দিন ২০-৩০ মিনিট এক্সারসাইজ করা উচিত। সেটা সকালে বা বিকেলে যে কোন সমায় হতে পারে । তাতে করে  আমাদের কাজের এনার্জি যেমন বাড়বে তেমনি ঘুমেরও একটি সাইকেলিং চলে আসবে ।

exercise

কি ধরনের এক্সারসাইজ করবেন

মাসলের ক্লান্তি যেহেতু ঘুম আসতে  সাহায্য করে সেহেতু পা ইনভলভ থাকবে তেমন এক্সারসাইজ বেছে নিন।সেক্ষেত্রে জগিং, সাঁতার কাটা ,সাইকেল চালানো ,স্কিপিং, হাঁটা,নাচ- এ জাতীয়  এক্সারসাইজ করা যেতে পারে। তাছাড়াও দিনে হাঁটতে পারেন ১৫ থেকে২০ মিনিট।করতে পারেন মেডিটেশনও  তাতে  মন শান্ত থাকবে। মনে রাখবেন ঘুম শুধু আপনার শরীরকেই ঠিক রাখবে না  মনকেও রাখবে উজ্জেবিত, সদা প্রফুল্ল।

এক্সারসাইজের  উপকারিতা

আমরা যে এক্সারসাইজ বা ব্যায়াম করি তার উপকার কি উপলুব্ধি করতে পারি?  জেনে নেয়া যাক এর উপকারিতা সম্পর্কে –

– এক্সারসাইজ করলে রক্তে জমে থাকা  ল্যাক্টিক এসিড দূর হয়ে যায় ।ফলে স্ট্রেস কমে যায়।

– এক্সারসাইজ টেনশন কমিয়ে দেয় এবং ব্রেনে অক্সিজেনের পরিমাণ বাড়িয়ে দায়। শরীরকে করে     তোলে স্বতঃস্ফূর্ত ।

– হার্ট ও ফুসফুস কে করে তোলে শক্তিশালী ।

-শরীরে এন্ডরফিন (এক ধরনের নিউরোট্রান্সমিটার) এর পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়।যা মন কে শান্ত রাখতে সাহায্য করে।

সর্বোপরি ঘুম নিয়ে আমাদের যে এত মাথা ব্যাথা সেই মাথায় যে দুশ্চিন্তা বা টেনশন ঘুরপাক খায় তা কমাতে সাহায্য করে।মন ও শরীর কে রাখে রিলাক্স মুডে । যা  ঘুমের জন্য অতি জরুরী।

তাই আর দেরি না করে আজ থেকেই শুরু করে দিন এক্সারসাইজ বা ব্যায়ামের কার্যকরী ভূমিকা।

 

শাহারিয়ার কাবির তুষার

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।