|

আপনি কি কানাডা’র নতুন অভিবাসী?

কানাডা-৪আগেও জানিয়েছি যে, টরন্টোর নিউ-ইমিগ্র্যান্টদের জন্যে আমার ধারাবাহিক এ লেখাগুলো কেবলই আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা এবং মতামত। সুতরাং লেখার কোথাও কোন ভুল-ভ্রান্তি থাকলে সেক্ষেত্রে পাঠকদের মতামত জানলে শুধু আমি নই, বরং সকলেই উপকৃত হবে।

শুরুতেই ব্যাঙ্ক নিয়ে আলোচনা:

ক. সি.আই.বি.সি ক্রেডিটকার্ড:
সি.আই.বি.সি-তে চেকিং অ্যাকাউন্ট করার সময়-ই আলাপ করেছিলাম কিভাবে ওদের থেকে একটা বিনা পয়সায় একটা ক্রেডিটকার্ড পাওয়া যায়। সি.আই.বি.সি-র কর্মকর্তা শ্রীলঙ্কান ভদ্রলোক ডিলান আমাকে জানিয়েছিলেন, যে কোন কানাডিয়ান ফটো আইডি যেমন জি-১/জি-২/জি ড্রাইভিং লাইসেন্স) এবং পি.আর. কার্ড হলেই সি.আই.বি.সি ক্লাসিক ভিসা কার্ড দিয়ে দেবে তারা। ডিলানের কথামতো আমার ড্রাইভার্স লাইসেন্স এবং পি.আর. কার্ড তথ্য দিয়ে একটা ক্ল্যাসিক ক্রেডিটকার্ড -এর ২৫০০ টাকা লিমিটের জন্যে আবেদন করলাম, কর্তৃপক্ষ আমাকে ১৫০০ ডলার লিমিটের ক্রেডিট কার্ড অনুমোদন করলেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সি.আই.বি.সি ক্লাসিক ভিসা কার্ড -এর কোন মাসিক অথবা বাৎসরিক ফি নেই।

ডিলানের সাথে আমার পরবর্তী আলোচনা ছিল, কিভাবে সি.আই.বি.সি-তে মাসিক ফি না দিয়ে অ্যাকাউন্ট রাখা যায়। এই ব্যাঙ্কে আমি যে অ্যাকাউন্টটি করেছিলাম, সেটি হলো চেকিং অ্যাকাউন্ট। নিউ-কামার প্যাকেজের এই অ্যাকাউন্টের সুবিধাগুলো ছিল এরকম:
১. এক বছর কোন মাসিক ফি (৩.৯০ ডলার) দিতে হবেনা
২. মাসে ১০ টি ট্রানজেকশন ফ্রি

ডিলান জানালো, একটাই মাত্র উপায় আছে, সেটা হলো যদি আমি আমার বর্তমান চেকিং অ্যাকাউন্টে কমপক্ষে ১০০০ ডলার জমা রাখি, তাহলে চেকিং অ্যাকাউন্টের মাসিক ফি ৩.৯০ ডলার মওকুফ হবে। তবে সেক্ষেত্রে মাসিক ১০ টি ট্রানজেকশন ফ্রি-তে পাওয়া যাবে। দশ-এর অধিক ট্রানজেকশন (ডলার যদি চেকিং অ্যাকাউন্ট থেকে তুলি অথবা যেকোন বিল যেমন ক্রেডিটকার্ড বিল পে করি অথবা ডলার আমার অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য কোন অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করি) হলেই ব্যাঙ্কের নির্ধারিত চার্জ দিতে হবে। পরবর্তীতে ১০০০ ডলার জমা রেখে উল্লেখিত এই কাজটি করা হয়নি। অর্থাৎ, সিআইবিসি-এর ‘নিউ কামার প্যাকেজে’র এক বছরের সুবিধাসমূহ উপভোগ করতে করতেই আমি আমার অ্যাকাউন্টকে স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টে পরিবর্তন করে নিয়েছি। এখন আমার মাসিক কোন ফি তো দিতে হয়ই না উপরন্তু আন-লিমিটেড ট্রানজেকশন সুবিধাও রয়েছে।

খ. ট্যাক্স ফ্রি সেভিংস অ্যাকাউন্ট:
কানাডাতে এসে এই ধরণের অ্যাকাউন্টের সাথে আমি প্রথম পরিচিত হলাম। এখানে অনেক ব্যাংক-ই ট্যাক্স ফ্রি সেভিংস অ্যাকাউন্ট (টি.এফ.এস.এ) অফার করে। আর.বি.সি ব্যাঙ্কের একটা সুবিধা হলো, কোন গ্রাহক (নিউ ইমিগ্র্যান্ট প্যাকেজে) যদি ২ টা প্রোডাক্ট কিনে থাকে অর্থাৎ, আর.বি.সি ব্যাঙ্কের চেকিং অ্যাকাউন্ট এবং ভিসা ক্রেডিট কার্ড নিয়ে থাকে, তাহলে তাদের তৃতীয় প্রোডাক্ট টি.এফ.এস.এ কিনলেই ওই চেকিং অ্যাকাউন্টের মাসিক ফি (৪ ডলার) মওকুফ হয়ে যাবে।

টি.এফ.এস.এ-এর সুবিধা:
১. এই অ্যাকাউন্টে প্রতিমাসে কমপক্ষে ২৫ ডলার থেকে ৫০০০ ডলার পর্যন্ত রাখা যাবে।
২. যে কোন সময় জমানো টাকা তুলে ফেলা যাবে।

গ. স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট:
আর.বি.সি, সি.আই.বি.সি ইত্যাদি ব্যাংকে স্টুডেন্টদের জন্যে রয়েছে আকর্ষণীয় স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট, যেখানে মাসিক/বাৎসরিক কোন ফি দিতে হবেনা এবং প্রতি মাসে আনলিমিটেড ট্রানজেকশন সুবিধা রয়েছে।

গভর্ণমেন্ট হাউজিং:
স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্যে টরন্টোতে কম ভাড়ার সরকারী বাসা রয়েছে। কাজেই টরন্টোতে নেমেই দেরী না করে দ্রুত বাসার জন্যে অ্যাপ্লিকেশন করে দিন। অ্যাপ্লাই করতে কোন টাকা লাগবেনা। আমার পরামর্শ হলো প্রথমে হাউজিং কানেকশনের ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপ্লিকেশনের হার্ড কপি ডাউনলোড করে তা পূরণ করার পর সেই অ্যাপ্লিকেশনের কপি এবং আপনার পারমানেন্ট রেসিডেন্ট কার্ডের কপিসহ স্ব-শরীরে হাউজিং কানেকশনের অফিসে চলে যান। বাকীটা ওদের কাজ। এই বাসা পেতে হয়তো ৫-৭ বছর সময় লেগে যেতে পারে। লাগলে লাগুক। অ্যাপ্লাই করতেতো দোষ নেই, তাইনা?

হাউজিং কানেকশনের অফিসের ঠিকানা (ডাউন টাউনের সেন্ট প্যাট্রিক সাবওয়ে স্টেশনে নেমে হাঁটা পথ):
Housing Connections Resource Centre
176 Elm Street
Toronto, ON
M5T 3M4

প্রসঙ্গত: উল্লেখ্য যে, সরকারী কম ভাড়ার বাসার জন্যে হাউজিং কানেকশনে অ্যাপ্লাই করার পর নিয়মিত আপনার অ্যাকাউন্ট ইনফরমেশন (মাসিক আয়/চাকুরী/বৈবাহিক অবস্থা/ঠিকানা অথবা ফোন নম্বর পরিবর্তন ইত্যাদি) আপডেট করুন।

ড্রাইভার্স লাইসেন্স:
বিগত পর্বে ড্রাইভার্স লাইসেন্স নিয়ে কিছুটা আলোচনা করেছিলাম। আজ আরও কিছু তথ্য শেয়ার করতে চাইছি।

আপনি গাড়ি চালান বা না চালান, কানাডিয়ান ড্রাইভার্স লাইসেন্স আপনার কানাডার জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ফটো আই.ডি বা ডকুমেন্ট। অতএব, দেরী না করে দ্রুত ড্রাইভার্স লাইসেন্স পরীক্ষাগুলো দিয়ে জি লাইসেন্স তুলে ফেলুন। যারা বাংলাদেশ থেকে ৬ বা তার অধিক বছরের পুরনো ড্রাইভার্স লাইসেন্স নিয়ে আসবেন, তারা জি-১ দেবার পর জি-২ না দিয়ে সরাসরি জি পরীক্ষায় বসতে পারবেন। ব্যক্তিগতভাবে আমি নিজেকে বেশ ভালো ড্রাইভার মনে করতাম। তাই জি-১ দেবার পর আমি নিজেও সরাসরি জি পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলাম। কিন্তু পরীক্ষা শেষ হবার পর যখন জি পরীক্ষায় প্রথমবার ফেল করলাম, আমার ধারণা ভুল প্রমাণিত হলো যে, আমি বাংলাদেশে ভালো ড্রাইভ করতাম। মূল ব্যাপারটি হলো, জি-২ বা জি রোড টেস্টে উৎরিয়ে যেতে হলে আসলেই আপনাকে কানাডার রাস্তার নিয়মকানুন সঠিকভাবে মেনে এবং আয়ত্ত্ব করে গাড়ি চালাতে হবে। জি পরীক্ষায় প্রথমবার ফেল করার ফলে পরবর্তীতে আমাকে জি-২ দিতে হলো। জি-২ তে পাশ করে তারপর আমি জি পরীক্ষায় অবতীর্ণ হলাম এবং সাফল্যের সাথে পাশ করলাম। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, জি-২ এবং জি পরীক্ষার সরকারী ফি যথাক্রমে ৪০ এং ৭৫ ডলার। আপনার ইন্সট্রাকটর (যার কাছে গাড়ি চালানোর ট্রেনিং নিবেন) যদি আপনাকে টরন্টো শহরের বাইরে দূরে কোথাও (ওকভিল/অশোয়া/লিনজি/ক্লিনটন ইত্যাদি) পরীক্ষা দিতে নিয়ে যান, তাহলে ইন্সট্রাকটরকে এলাকা ভেদে ১৫০-২৫০ টাকা পরীক্ষার দিন দিতে হবে। অতএব, একবার পরীক্ষায় ফেল করা মানে হলো টাকা গচ্চা যাওয়া।

কার-ইনস্যুরেন্স:
টরন্টো শহরে প্রতিমাসে গাড়ি চালানোর জন্যে ইনস্যুরেন্স দেয়াটা বাধ্যতামূলক। আর নতুন ড্রাইভারদের জন্যে এই ইনস্যুরেন্স বাবদ ডলারটা একটু বেশি অর্থাৎ সেটা ৩০০-৪০০ ডলারের মতো হতে পারে।
বয়স, এলাকা, গাড়ির মডেল ইত্যাদির উপর ইনস্যুরেন্স নির্ভর করে। যেমন, গাড়ির মডেল যত নতুন হবে, ইনস্যুরেন্স তত কমে যাবে। জি-২ ড্রাইভারদের থেকে জি ড্রাইভারদের ইনস্যুরেন্স কম। অনেক খোঁজ নিয়ে দেখলাম যে, নতুন ড্রাইভারদের জন্যে একমাত্র টিডি’র-ই ভালো অফার রয়েছে।

ট্যাক্সি লাইসেন্স:
আপনি যদি জি লাইসেন্সধারী হন, তাহলে ট্যাক্সি চালানোর লাইসেন্সের জন্যে ট্রেনিং নিয়ে পরীক্ষা দিতে পারেন। ট্যাক্সি লাইসেন্স বিষয়ক আলোচনা এখানে করছি কারণ, ট্যাক্সি চালানো একটি স্বাধীন জব। অর্থাৎ, এখানে রেস্টুরেন্ট বা অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে ধরাবাঁধা সময়ে মতো কাজ করতে হয়না। আপনার যখন ইচ্ছে, যখন টাকা প্রয়োজন, ট্যাক্সি নিয়ে বের হয়ে টাকা ইনকাম করুন। যারা ট্যাক্সি চালায়, তাদের থেকে শুনেছি, ট্যাক্সিতে ইনকাম সপ্তাহে ১২০০-১৫০০ ডলার হতে পারে, আবার বেশিও হতে পারে। সাধারণত সামারে ইনকাম কম, কিন্তু উইন্টারে বেশ ভালো। ট্যাক্সি লাইসেন্স নিতে হলে ডাউনটাউনের সিটি অব টরন্টোতে ২১ দিনের ট্রেনিং করতে হয়। সব মিলিয়ে হাজারখানেক ডলার এর পিছে ইনভেস্ট করতে হবে। ট্যাক্সি লাইসেন্স পাবার পর প্রতিবছর রিনিউ করতে শুনেছি প্রায় ২০০ ডলারের মতো লাগে। তবে নতুন ট্যাক্সি চালকদের জন্যে সমস্যা হলো, শুরুতে ট্যাক্সি পাওয়াটা কঠিন। এর জন্যে অপেক্ষায় থাকতে হয়।

আজ এ পর্যন্তই। আগামী পর্বগুলোতে আরও বেশি তথ্য নিয়ে আসার চেষ্টা করবো। সবাইকে শুভেচ্ছা।

-প্রতিবেদনটি তৈরী করেছেন  মোহাম্মদ তানজীর

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা