|

তবে কি মালালা পাকিস্তানী নন?

52583e59545be-3[1]

 

খুব অল্প সময়ে মালালা একের পর এক যেভাবে বিশ্ব সংবাদের শিরোনামে চলে আসছেন তেমনটি আর কারো ভাগ্যে ঘটে কম। মালালা’র নোবেল প্রাপ্তির অসমাপ্ত অধ্যায়টা ঘুঁচতে না ঘুঁচতেই এবার বোমা ফাটলো আর এক স্থানে। তিনি নাকি আদৌ পাকিস্তানিই নন! তবে কে এই নারী? কোথায় তার বাড়ি? বলা হচ্ছে, বিশ্বব্যাপী আলোচিত পাকিস্তানি মেয়ে মালালা ইউসুফজাই এর জন্ম হাঙ্গেরিতে।  আসল নাম জেইন, তার মালালা নামটি নকল। এমনকি বর্তমান পিতামাতাও আসল নয়। প্রকৃত বাবা-মা দুজনই খ্রিস্টান মিশনারিজের সদস্য। মালালাকে বর্তমান পাকিস্তানি পিতা-মাতাকে উপহার হিসেবে দিয়ে যান তারা। তবে এজন্য তাদেরকেও খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করতে হয়। আর তালেবান কর্তৃক তাকে গুলি করার ঘটনাটিও ছিল গোয়েন্দাদের সাজানো।

পাকিস্তানের দৈনিক ডন পত্রিকার সিনিয়র কলামিস্ট পত্রিকার অনলাইন ব্লগের একটি লেখায় এমন তথ্য তুলে ধরেন। তবে লেখাটি একটা ‘স্যাটায়ার’ ও ‘ফিকশন’।

সেখানে বলা হয়,  দীর্ঘ পাঁচ মাসের অনুসন্ধানের পর পাকিস্তানের প্রভাবশালী দৈনিক ডন-এর একটি চৌকস সাংবাদিক গ্রুপ সোয়াত উপত্যকায়তথ্য-প্রমাণসহ এ প্রতিবেদন পেশ করেছে।

ব্লগটিতে লেখা হয়, মালালা পাকিস্তানি নয় এবং তার জন্মও পাকিস্তানে নয়। তিনি পশতুভাষীও নন।

সোয়াত এলাকার খ্যাতিমান ডাক্তার ইমতিয়াজ আলী খানজাই জানিয়েছেন, তার কাছে মালালার ডিএনএ রিপোর্ট রয়েছে যা প্রমাণ করে মালালা পশতুভাষী নয়। ইমতিয়াজ আলী খানজাই সোয়াত উপত্যকায় একটি প্রাইভেট ক্লিনিক পরিচালনা করেন।

ব্লগটিতে দাবি করা হয়, ডিএনএ অনুসারে মালালা একজন ককেসিয়ান। সম্ভবত তারা এসেছেন পোল্যান্ড থেকে।

ইমতিয়াজ আলী খানজাই’র উদ্ধুতি দিয়ে বলা হয়, মালালার পিতা তখন ডাক্তারকে অনুরোধ করেন, তিনি যা জেনেছেন সেটা যেন কাউকে না বলেন।

মালালার পিতা জানান, মালালার আসল নাম জেইন। তার জন্ম হাঙ্গেরিতে ১৯৯৭ সালে। তার আসল পিতামাতা দুজনই খ্রিষ্টিয়ান মিশনারিজ। তারা ২০০২ সালে সোয়াত এলাকায় আসেন। তারা মালালাকে বর্তমান পিতামাতাকে উপহার হিসেবে দেন। বিনিময়ে গোপনে তাদেরকেও খ্রিস্টান ধর্ম গ্রহণ করতে হয়!

 

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চাই: মালালা

এদিকে মজার ব্যাপরটি হচ্ছে, যখন তাকে বলা হচ্ছে, তার জন্মই নাকি পাকিস্তানে নয়, তখনই পাকিস্তানের নারীশিক্ষা আন্দোলনের কর্মী মালালা ইউসুফজাই বলেছেন, তিনি আগামীতে সে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হতে চান। গত ১০ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মালালা আরও বলে, শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য সে নয়। এর পরও গৌরবময় এ পুরস্কারে ভূষিত হলে তা তার জন্য ‘বিরাট সম্মানের’ ব্যাপার হতো। সে চিকিৎসক নাকি রাজনীতিবিদ হওয়ার স্বপ্ন দেখে, এমন প্রশ্নের জবাবে মালালা বলে, ‘আমি মাতৃভূমির সেবা করতে চাই। এ জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখি। রাজনীতির মাধ্যমে আমার দেশকে রক্ষা করতে পারব। তখন শিক্ষা খাতে বাজেটের বড় একটা অংশ বরাদ্দ করতে সক্ষম হব। এ ছাড়া পররাষ্ট্র বিষয়ে আরও মনোযোগ দিতে পারব।’

 

শান্তিতে নোবেল প্রাপ্তি প্রসঙ্গে

মালালা এবারের শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পেতে পারে বলেও ধারণা করা হয়েছিল। এ বিষয়ে মালালা বলে,  ‘আমি যদি পুরস্কারটি পাই, তাহলে তা হবে বিরাট এক সম্মান। এমন পুরস্কারের জন্য আমি যোগ্য নই। এর পরও যদি পাই, তাহলে নারীশিক্ষা প্রচারণা শুরু করতে তা সহায়ক ভূমিকা রাখবে।’ পাকিস্তানের তালেবান জঙ্গিরা নতুন করে হুমকি দিয়েছে, মালালাকে তারা সুযোগ পেলে হত্যা করবে। সিএনএন বৃহস্পতিবার তার সাক্ষাৎকার নেওয়ার সময় কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। তালেবানের হুমকি সম্পর্কে মালালা বলে, ‘ওরা শুধু একটা শরীরকে গুলি করতে পারে, কিন্তু আমার স্বপ্নকে গুলি করতে পারবে না।’ পাকিস্তানের তালেবান জঙ্গিগোষ্ঠী সোয়াত উপত্যকায় কয়েক বছর আগে মেয়েদের শত শত স্কুল বন্ধ করে দেয়। প্রতিবাদে সোচ্চার হয় মালালা। এর জেরে গত বছরের ৯ অক্টোবর জঙ্গিরা মালালার মাথায় গুলি করে। সূত্র:  পিটিআই ও ডন।

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা