|

কানাডায় নাগরিকত্ব বিধান ১১ অক্টোবর থেকে কার্যকর

post-imageবহু আকাঙ্ক্ষিত কানাডার ‘নাগরিকত্ব’ লাভ এতদিন নানা শর্তের বেড়াজালে আবদ্ধ হয়ে পড়েছিল। নতুন বিধান ১১ অক্টোবর থেকে কার্যকর হতে যাচ্ছে।

নাগরিকত্বের জন্য অপেক্ষার সময়টাও অনেক বেড়ে গিয়েছিল। ২০১৪ সালে হাউজ অব কমন্সে ইমিগ্রেশন ও সিটিজেনশিপ মন্ত্রী ক্রিস আলেক্সান্ডার কানাডার নাগরিকত্ব আইনে বড় ধরনের পরিবর্তনের প্রস্তাব দিয়ে একটি বিল উত্থাপন করেছিলেন।

নতুন প্রস্তাবিত বিলে কানাডার স্থায়ী বাসিন্দাদের (পারমানেন্ট রেসিডেন্টদের) নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পাচ বছরের মধ্যে ন্যূনতম তিন বছর কানাডায় অবস্থান করতে হবে বলে শর্তযুক্ত করা হয়েছে যা আগে ছিল ছয় বছরের মধ্যে ন্যূনতম চার বছর।

এই চার বছরের মধ্যে আবার প্রতিবছর অন্তত ছয় মাস করে সশরীরে অবশ্যই কানাডায় বসবাস করতে হচ্ছে, যা এখন বাতিল করা হচ্ছে। ২০১৪ সালের পূর্বে চার বছরের মধ্যে তিন বছর কানাডায় অবস্থান করার পরই যে-কেউ নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারতেন এবং প্রতিবছর কোনো নির্দিষ্ট সময় বসবাসের কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না, যা আবার ফিরে আসতে যাচ্ছে।

তবে প্রস্তাবিত বিলে নাগরিকত্ব লাভের ক্ষেত্রে ভাষাজ্ঞানের শর্ত বর্তমানের মত কঠোর রাখা হচ্ছে। তবে ৫৪ বছরোর্ধ্বদের ভাষার শর্তাবলি শিথিল হচ্ছে ।

এখন ১৮ থেকে ৫৪ বছর বয়সী আবেদনকারীদের ইংরেজি অথবা ফরাসি ভাষায় নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে, তবে ১৮ বছরের নিচে এবং ৫৪ বছরোর্ধ্বদের ইংরেজি অথবা ফরাসি ভাষায় নির্দিষ্ট যোগ্যতা পূরণ করতে হবে না।

ইমিগ্রেশন কানাডা বলছে, কানাডিয়ান নাগরিক যারা হবেন, তারা কানাডায় বসবাস করবেন, কানাডায় কাজ করবেন এবং কানাডিয়ান সমাজের সঙ্গে মিশে যাবেন। কাজেই তাদের কানাডার অফিশিয়াল কোনো একটি ভাষায় পর্যাপ্ত জ্ঞান থাকতে হবে।

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা