|

নীরুদা ভালো থেকো। ভালো তোমাকে থাকতেই হবে।

রেহানা আক্তার লুনা: চতুর্থ প্রয়াণ দিবসে মাহাবুবুল হাসান নীরুকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে ‘সময়ের কথা’ তাঁর যে আবেগের বহি:প্রকাশ ঘটিয়েছে তাতে আমরা আপ্লুত।

জীবনের সর্বশেষ যে সৃষ্টিশীল উন্মাদনার স্বাদ নিতে নিতে নীরুদা ওপারের ডাকে সাড়া দিয়ে চলে গেলেন সেটি ছিলো ‘সময়ের কথা’। স্বপ্নের শেষ নেই, সৃষ্টির সীমা-পরিসীমা নেই। রোববার, ক্রীড়ালোক যার শক্ত হাতের গাঁথুনীতে উজ্জ্বল উদ্ভাসিত ছিলো সেই নীরুদা-ই প্রবাসী হয়ে হাল ধরলেন কানাডা বেইস ও বাংলা অনলাইন পত্রিকা ‘সময়ের কথা’র।

মাঝে নিজের মৌলিক লেখালেখির ক্ষুধাতো মেটাচ্ছিলেনই, সেই সাথে নিজের শরীরে লালন করছিলেন ক্যান্সার এর মতো মরণব্যাধীকেও। অসীম মনোবল, অবিশ্বাস্য কর্মস্পৃহা। কাজ পাগল নীরুদা কাজই করে গেলেন আমৃত্যু। চব্বিশ ঘন্টা দিন-রাতের আঠারো ঘন্টাই তার কলম চলতো। প্রবাস জীবন সেই ঘন্টার হিসেবটাকে কমিয়ে আনলেও লেখার ধারালতাকে সম্বল করে নীরুদা নিজেকে সচল রেখেছিলেন।

মাঝে ‘ফোবানা পুরস্কার’ তাকে যেন আবার নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখিয়েছিলো। কিন্তু স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল। স্বপ্নবাজরা মনে হয় এভাবেই চলে যান। শ্রদ্ধা সেই বন্ধুত্বকে। পঁচিশ বছর পর যার ছোঁয়ায় নতুন আলোয় আলোকিত ছিলেন নীরুদা। ‘রেইন বো’ মরে না। আকাশে তার উপস্থিতি সব সময়ই জ্বলজলে। আমরা পরিবার তাই মনে করি।

নীরুদা ভালো থেকো। ভালো তোমাকে থাকতেই হবে।

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা