কিলার মোরশেদ-এর দম্ভোক্তি “আমায় গ্রেফতারের পুলিশ এই দেশে নেই”

কিলার মোরশেদ-এর দম্ভোক্তি “আমায় গ্রেফতারের পুলিশ এই দেশে নেই”

বিশেষ প্রতিবেদন: পূর্ব পরিকল্পিতভাবে নিজের বন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যা করার পর ভয়ংকর অপরাধী কিলার মঞ্জুর মোরশেদ প্রকাশ্যে বলে বেড়াচ্ছে তাকে গ্রেফতার করবে এমন পুলিশ বাংলাদেশে নেই। এদিকে হত্যা মামলা দায়েরের প্রায় এক মাস হতে চললেও এখন পর্যন্ত পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারের কোনও চেষ্টাই চালাচ্ছেনা। উল্লেখ্য গত ১৩ই সেপ্টেম্বর বিকেলে বিজিএমইএ’র সাবেক কর্মকর্তা এমদাদুল হক লিপনকে তারই ঘনিষ্ট বন্ধু মঞ্জুর মোরশেদ, এহতেশাম কবির জুন ও ইঞ্জিনিয়ার মাসুম সহ ২/৩ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি নারায়নপগঞ্জ জেলাস্থিত পূর্বাচল উপশহরের নীলা মার্কেটে নিয়ে গিয়ে অমানবিকভাবে হত্যা করার পর একটি সাদা প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো গ-৩৩-৩৯৬৯) তে বসিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি খালে ফেলে এটিকে দুর্ঘটনা হিসেবে চালানোর চেষ্টা চালায়। কিন্তু পরবর্তীতে লিপনের পরিবারের সদস্যদের মাঝে সন্দেওহ দেখা দিলে লিপনের বড়ভাই মোঃ এনামুল হক স্বপন বাদী হয়ে গত ১৮ই সেপ্টেমবর রূপগঞ্জ থানায় দন্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর ৪৯।

মামলা দায়েরের একমাস সময় অতিবাহিত হতে চললেও এখন অব্দি পুলিশ কেনো আসামীদের গ্রেফতারে কোনও উদ্যোগই নেয়নি, এ প্রশ্নের জবাএ পুলিশের একজন উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এই প্রতিবেদককে বলেন, বিষয়টি এরই মাঝে নিহত লিপনের পরিবারের পক্ষে থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবগত করায় বিষয়টি নিয়ে শিগগিরি ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং কর্তব্যে অবহেলার দায়ে সংস্লিষ্ট পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। জানা গেছে, মামলার আসামীদের প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং মামলা দায়েরের কয়েক দিনের মাথায় মঞ্জুর মোরশেদ ওরফে কিলার মোরশেদ-কে গ্রেফতার করেও নগত দশ লাখ টাকা ঘুষ নিয়ে ছেড়ে দেয়।

ইতিমধ্যেই তদন্তকারী সংস্থা মামলার আসামী কিলার মোরশেদ সহ ওপর আসামী এবং নিহত লিপনের স্ত্রী রুমানা’র মোবাইল ফোনের কল রেকর্ড সংগ্রহ করছে বলে পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে। পাশাপাশি এমদাদুল হক লিপনের ফেইসবুক আইডি তে হত্যাকান্ডের দিন আপলোড করা দুটি লাইভ ভিডিও নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। এগুলো পুলিশের ফরেনসিক বিভাগসহ অডিও বিশেষজ্ঞদের দিয়ে পরীক্ষা করানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এবিষয়ে সংস্লিষ্ট একটি সূত্র বলেছে, ওই ভিডিওগুলো থেকে এরই মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে।

সূত্রটি আরো জানায়, ১৩ই সেপ্টেম্বর বিকেল ৫ টার পর হতে লিপনের ব্যাংক একাউন্টগুলো থেকে এটিএম কার্ডে কত টাকা তোলা হয়েছে এবং এগুলো কারা তুলেছে সেটাও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

আজ রবিবার খুলনায় সমাহিত লিপনের মরদেহ সুরৎহাল রিপোর্টের জন্যে কবর থেকে তোলা হচ্ছে।

দেশ ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে খুনী চক্র

হত্যা মামলা দায়েরের পর থেকেই মামলাটিতে অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে বাধাগ্রস্থ করার আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে কিলার মোরশেদ এবং তার ওপর সহযোগীরা। এজাকে তাদের প্রত্যক্ষ সহায়তা দিচ্ছেন বিজিএমইএ’র একজন শীর্ষ নেতা। উল্লেখ্য, আসামীদের বেশীরভাগই মোহাম্মদী গ্রুপ নামীয় প্রতিষ্ঠানে কর্মরত।

প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে নিহত লিপনের পরিবার

ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং অপরাধীদের গ্রেফতার ও তাদের ফাঁসির দাবী জানিয়েছে নিহত এমদাদুল হক লিপনের পরিবার। জানা গেছে এবিষয়ে তারা প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করার চেষ্টা করছে।

Loading…

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Loading…

অনুভূতি জানানঃ

Facebook fan page

Leave a Reply

Your email address will not be published.