|

তলিয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্রের হাজার হাজার শহর

সবচেয়ে বেশী ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে ফ্লোরিডা

সবচেয়ে বেশী ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে ফ্লোরিডা

সময়ের কথা ডেস্ক : সংবাদটা চমকে ওঠার মতোই। নিশ্চয় এ সংবাদ শোনার পর উল্লেখিত শহরগুলোর অধিবাসীদের ঘুম হারাম হওয়ার দশা হয়েছে। ২১০০ সালের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের ১,৭০০’রও বেশি নগর ও শহর আংশিক কিংবা পুরো পানির নিচে তলিয়ে যাবে।সমুদ্রে পানির উচ্চতা বেড়ে যাওয়ার কারণে এ পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

 

এসব শহরের মধ্যে রয়েছে বস্টন, নিউ ইয়র্ক এবং মিয়ামি।তাছাড়া, সমুদ্র থেকে দূরের কয়েকটি শহরও এ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।যেমন: ক্যালিফোর্নিয়া, নোরফোক এবং ভার্জিনিয়া।

 

তবে ঝুঁকিপূর্ণ শহরগুলোর মধ্যে প্রায় ৮০টি শহর আগামী দশকের মধ্যেই পানির কবলে পড়বে বলে পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে সোমবার প্রকাশিত ‘ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সায়েন্সেস’ এর জলবায়ু বিশ্লেষণমূলক এক প্রতিবেদনে।

 

গ্রিনহাউজ গ্যাস নির্গমনের কারণে ভূ-পৃষ্ঠের তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ায় সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে এ ভয়াবহ পরিণতি দেখা দেবে বলে জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

 

গবেষণা প্রতিবেদনটির লেখক ও গবেষক বেঞ্জামিন স্ট্রস বলেছেন, গ্রিনহাউজ গ্যাস নির্গমণ যদি আগামীকালেরও বন্ধ করা সম্ভব হয় তারপরও ফোর্ট লাউডারডেল, মিয়ামি গার্ডেনস, হোবোকেন, নিউজার্সি পানিতে তলিয়ে যাবে।

 

তবে নাটকীয়ভাবে গ্রিনহাউজ গ্যাস নির্গমন বন্ধ করা গেলে অন্তত এক হাজার শহরকে রক্ষা করা সম্ভব বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

 

এরইমধ্যে একশ’রও বেশি মার্কিন শহর পানিবন্দি হয়ে পড়েছে বলে জানান গবেষক স্ট্রস। যেকোন সময় এসব শহর বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান তিনি।

 

স্ট্রস আরো বলেন, ২১০০ সালের মধ্যে তলিয়ে যাওয়ার ঝুঁকিতে থাকা ১,৭০০ টি শহরের ২৫ শতাংশ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়বে।৭৯ টি শহর ও নগরের ৮৩৫,০০০ মানুষ ২০২৩ সাল নাগাদ ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখতে পাবে।ফোর্ট লাউডারডেল, হোবোকেন এবং পাম বিচের প্রায় অর্ধেক মানুষ ২০২৩ সাল নাগাদ প্রচণ্ড বন্যার কবলে পড়বে।

 

বস্টনের চালর্স নদী বরাবর কেমব্রিজের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী ২০৬০ সালের শুরুতেই জলমগ্ন হয়ে পড়বে।একইরকম পরিস্থিতি দেখাদিতে পারে টেক্সাসের কয়েকটি উপকূলীয় অঞ্চলেও।তবে পানিতে তলিয়ে যাওয়ার সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছে ফ্লোরিডা।এ শতাব্দী শেষেই ফ্লোরিডার বহু সংখ্যক শহর চলে যেতে পারে পানির নিচে। বিশ্বের সব চাইতে ক্ষমতাধর দেশটি কি এতো সহজেই প্রকৃতির কাছে মাতা নত করবে?

সময়ের কথায় প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

মন্তব্য করুন





টুইটারে আমরা

পূর্বের সংখ্যা